একমুঠো আহার ক্ষুধার বিরুদ্ধে পদক্ষেপ

 


একমুঠো আহার [ One Handful Meal ]

🍲 ক্ষুধার্ত অসহায় মানুষের জন্য আমাদের প্রচেষ্টা 🍵


 

 


ক্ষুধার বিরুদ্ধে পদক্ষেপ


বাংলাদেশের আর্থ সামাজিক অবস্থায় গরিব দুঃখি মানুষের সংখা ৯৫% ভাগ। বাংলাদেশে সরকারি ও বেসরকারি ভাবে বহু সেবাদানকারী প্রতিষ্ঠান গড়ে উঠেছে তবুও প্রয়োজন মিটছে না।
সেবার প্রসার যত বাড়ছে তার দ্বিগুন হারে বাড়ছে দুঃস্থ নিরন্ন মানুষের মুখ। বাংলাদেশের এক শ্রেণীর লোকের বিভিন্ন ধরনের সুযোগ সুবিধা দিন দিন বাড়ছে, অপরদিকে আরেক শ্রেণীর লোক দিন রাত কঠোর পরিশ্রম করেও মৌলিক চাহিদা গুলো মেটাতে পারছে না, এমনকি দু বেলা ভালভাবে খেতেও পাচ্ছে না। এরূপ লোকের সংখ্যাই বেশী।

এই অবস্থার প্রেক্ষিতে আমরা চাচ্ছিলাম বাংলাদেশের নিরন্ন কিছু মানুষের মুখে অন্তত ১বেলা একমুঠো আহার
তুলে দিতে। সেই অভিপ্রায়ে আমরা “একমুঠো আহার” নামের একটি প্রজেক্ট চালু করার উদ্দ্যোগ নিয়েছি।
আমরা প্রথমে শুরু করতে চাচ্ছি বাংলদেশের রাজধানী ঢাকা মহনগরী থেকে, এই ঢাকা মহানগরীতেই ভাসমান নিরন্ন মানুষগুলোর সংখ্যা বেশী।
আমাদের পরিকল্পনা হচ্ছে:
আমরা প্রতিদিন যেকোন রেল-ইস্টিশনে হাজির হবো কমপক্ষে ৫০জনের খাবার উপযোগী ভাত, আলু ভর্তা আর ডাল নিয়ে। আবার কোনদিন ভাত, ডাল আর সাথে থাকবে ১টুকরা মাছ বা গোস্ত।
আমাদের খাবারের ম্যেনু হতে পারে একেকদিন একেক রকম, যেমন:
১। সাদা ভাত, ভর্তা, ডাল
২। সাদা ভাত, ভর্তা, ডিম, ডাল
৩। সাদা ভাত, মুরগী, ডাল, লেবু
৪। সাদা ভাত, ডিম আর ঝোল
৫। সাদা ভাত, মাছ আর সব্জী বা ঝোল
৬। সপ্তাহে ১দিন ডিম – পোলাও

আমাদের কোন দেশী বা বিদেশী ডোনার নেই যারা আমাদের এই কার্যক্রম নিশ্চিৎভাবে চালিয়ে নিতে সহায়তা করবে। আমরা কার্যক্রম শুরু করে মাঝপথে থেমে যেতে চাই না।

আমাদের সংগঠন “ইউনিভার্সাল এনভাইরনমেন্টাল হিউম্যান রাইটস ফাউন্ডেশন” মানবতার সেবা শ্রেষ্ঠ ইবাদত এই ধ্রুব সত্যটিকে সামনে রেখে ২০০৭ সনের ১১ই জুলাই একটি অলাভজনক, অরাজনৈতিক দাতব্য সংগঠন হিসেবে আত্নপ্রকাশ করেছিলো। গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের সোসাইটি এ্যাক্ট ১৮৬০ -এর অনুকুলে বৈধ অনুমোদন নিয়েই -এর শুভ যাত্রা শুরু হয়।

[গভঃ রেজিষ্ট্রেশন নং: এস ৬৮৪৬ (৩৪) ২০০৭]।

এখানে উল্লেখ্য যে, আমাদের সংগঠনের মুল লক্ষ্য হচ্ছে বিভিন্নভাবে বাংলাদেশের পরিবেশ দুষন প্রতিরোধে কাজ করা। এর পাশাপাশি সমাজের সুবিধাবঞ্চিত অসহায় মানুষদের কল্যানে নিরলসভাবে বিভিন্ন সেবামূলক কাজ করে যাওয়া, ইউনিভার্সাল এনভাইরনমেন্টাল হিউম্যান রাইটস ফাউন্ডেশন বরাবরই ছিলো একটি প্রচার বিমুখ সংগঠন। এই সংগঠনটি কোন প্রকার সরকারী,বেসরকারী অথবা বৈদেশিক অনুদান ছাড়াই সংগঠনের সাধারন সদস্য ও পরিচালনা পর্ষদের সদস্যদের আর্থিক অনুদান দিয়েই পরিচালিত হয়েছে হয়েছে বিগত ৮/৯টি বছর। বিগত ২০০৭সন থেকে ২০১৬সনের মাঝামাঝি সময় পর্যন্ত এই দাতব্য সংগঠনটি বাংলাদেশের পরিবেশ আন্দোলনের সাথে সম্পৃক্ততার পাশাপাশি সমাজের সুবিধাবঞ্চিত অসহায় মানুষদের কল্যানে নিরলসভাবে বিভিন্ন সেবামূলক কাজ করে গেছে নিরবে নিভৃতে; বাংলাদেশের বিভিন্ন জেলায় প্রাকৃতিক দুর্যোগকালিন সময়ে ত্রান বিতরন কার্যক্রম পরিচালনা করা সহ ঢাকা শহরের বিভিন্ন বস্তিতে বিভিন্ন সময় শিশুখাদ্য ও শিশুদের পোশাক বিতরন কার্যক্রম পরিচালনা করেছে এই সংগঠনটি।
বর্তমানে আমরা “একমুঠো আহার” নামে কার্যক্রমটি চালু করতে চাচ্ছি তবে এই কার্যক্রমটি আমাদের একার পক্ষে চালিয়ে নেওয়া সম্ভব নয়। তার কারন আবারও ব্যাখ্যা করছি: আমাদের সংগঠনটির জন্য বাংলাদেশী বা বিদেশী কোন ডেনেশন বরাদ্দ নেই। সংগঠনটি ২০০৭সাল থেকে পরিচালিত হচ্ছে সংগঠনের সাধারন সদস্য ও পরিচালনা পর্ষদের সদস্যদের খুব সামান্য কিছু আর্থিক সাহায্যের ভিত্তিতে।

আমরা এই কার্যক্রম শুরু করে মাঝপথে থেমে যেতে চাই না।
আমরা চাচ্ছিলাম বাংলাদেশে অবস্থানরত বা দেশের বাইরে অবস্থানরত কিছু আলোকিত হৃদয়ের মানুষ আমাদের কার্যক্রম চালিয়ে নিতে তাদের সহায়তার হাত প্রসারিত করে দিক।

আমরা অপেক্ষায় আছি কিছু আলোকিত মানুষের!
হে আলোকিত মানুষ! সাড়া দাও।
আপনার সাড়ার অপেক্ষায় থাকলাম আমরা,
অপেক্ষায় থাকলো ক্ষুধার্ত অসহায় মানুষগুলো ।
ভালো থাকবেন, দোয়া করবেন আমাদের জন্য।

সার্বিক যোগাযোগ:
শহিদুল ইসলাম খান: +8801798000010
আপনার আলোকিত দান পাঠতে পারেন নিম্নে উল্লেখিত মাধ্যমগুলোতে।
আপনার আলোকিত অনুদান যতই ক্ষুদ্র হোক, সবই আমাদের কাছে বিনয় ও সন্মানের সাথে গ্রহনীয়।

 

 

 

সংগঠনের ব্যাংক অ্যাকাউন্ট:
ACCOUNT NAME:
UNIVERSAL ENVIRONMENTAL
HUMAN RIGHTS FOUNDATON
A/C NO: 164.110.29554 (Current account)
SWIFT CODE: DBBLBDDH164
ROUTING NO: 090263136
DUTCH-BANGLA BANK LTD.
BRANCH: MIRPUR 10
BANGLADESH
অথবা:
bkash A/C NO: 01798000010 (পারসোনাল)
Rocket A/C NO: 01798000010-9 (পারসোনাল)


বিশেষ দ্রষ্টব্য: আপনার আলোকিত দান পাঠানোর পর দয়া করে ফেসবুক ইনবক্সে
অথবা ইভেন্টের পোষ্টে কমেন্ট করে জানাবেন। আমরা সবারর স্বচ্ছতার জন্য প্রতিদিনের অনুদানের হিসাব পেইজে পোষ্ট আকারে প্রকাশ করবো।